[রামাদান স্পেশাল] আজকের আয়াত #১৮: বিজয়ের মূলসূত্র (অনুবাদ)

“যারা আল্লাহর ও তাঁর রাসূলকে মেনে চলে, আল্লাহকে ভয় করে এবং তাঁর ব্যাপারে সদাসচেতন, তারাই বিজয়ী।” (সূরাহ আন-নূর, ২৪:৫২)

কীভাবে ইসলামিক পুনর্জাগরণ সম্ভব সে ব্যাপারে এই সূরাহ্‌র ধারাবাহিক কিছু আয়াতের অংশ এটি। ইসলামের পুনর্জাগরণ বর্তমানে তুমুল আলোচনার একটি বিষয়। কারণ বিভিন্ন দল ও সংগঠন আজ এই নিয়ে তর্ক করছে যে, ইসলামিক পুনর্জাগরণের জন্য সঠিক পদ্ধতি কোনটি। কোনো কোনো গ্রুপ কেবল বস্তুগত সাফল্যকে আমলে আনছে, কেউ কেউ রাজনৈতিক সফলতাকে বড় করে দেখছে, কেউ আবার আধ্যাত্মিকতাকে, কেউ আকীদাহ্‌কে, কেউ সামাজিক সুবিচারকে, কেউ বা আবার শুধু জামা‘আতে সালাত আদায়কে সাফল্যের মূল হিসেবে বিবেচনা করছে। কেউ কেউ আবার বেছে নিচ্ছে সহিংস পথ।

প্রতিটি গ্রুপের লক্ষ্যই এক, তারপরও কাঠামোগতভাবে এদের কর্মপদ্ধতি আলাদা। আসলে মূল সমস্যাটা দৃষ্টিভঙ্গিতে। মুসলিম বিশ্বের সমস্যার একেকটি দিককে একেক দল মূল সমস্যা হিসেবে বিবেচনা করে সে অনুযায়ী এগোচ্ছে। তারা মনে করছে কেবল সেই একটি দিকের সমাধান হলেই সব সমাধান হয়ে যাবে। এভাবে তারা মূলত শাখা নিয়ে কাজ করছে, মূল সমস্যা নিয়ে নয়।

রাজনৈতিক অস্থিরতা, গৃহযুদ্ধ, অত্যাচারী শাসক, অচর্চাকারী মুসলিম, বিভ্রান্ত গ্রুপ এবং ভোগবাদী মুসলিম—এগুলোই সবই মূল সমস্যার বিভিন্ন শাখা। সব সমস্যার মূলে আছে আল্লাহর সঙ্গে মানুষের সম্পর্কহীনতা।

Photo credit: Matthias Rhomberg, via flickr[dot]com/photos/realsmiley/5166678236

Photo credit: Matthias Rhomberg, via flickr[dot]com/photos/realsmiley/5166678236

তাকওয়ার অভাবে মানুষ একে অপরকে খুন করে। তাকওয়ার অভাবে শাসকেরা অত্যাচারী হয়ে ওঠে। তাকওয়ার অভাবে মুসলিমরা বিচ্যুত হয়, ইসলাম চর্চা করে না, ভোগবাদী হয়ে ওঠে। আর এজন্যই আল-কুর’আনে যখন বিজয়ের পথের কথা বলা হয়, তখন তাকওয়ার প্রতি ইঙ্গিত করা হয়। ইঙ্গিত করা হয় আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে মেনে চলার দিকে।
বিজয় অর্জনের জন্য এই আয়াতে তিনটি গুণের কথা বলা হয়েছে:
১. আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য
২. আল্লাহভীতি
৩. তাকওয়া—আল্লাহর ব্যাপারে সদাসচেতনতা

গুণ তিনটি এই ধারাক্রম অনুযায়ী বর্ণনা করা হয়েছে, কারণ উন্নতির ধারাক্রম এটাই। আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে মেনে চলার মাধ্যমে এর শুরু। আল্লাহ ও তাঁর রাসূলকে মেনে চলা মানে কুর’আন-সুন্নাহ অনুসরণ করা। যে ব্যক্তি কুর’আন-সুন্নাহ মেনে চলে সে সালাত আদায় করতে শুরু করবে, সিয়াম পালন করতে শুরু করবে; আর এভাবে তার মধ্যে আল্লাহভীতি জেগে উঠবে। সময়ের পরিক্রমায় খাশিয়াহ বা আল্লাহভীতি থেকে মানুষ আল্লাহর ব্যাপারে হয়ে উঠবে সদাসচেতন। এটা হচ্ছে এমন এক অবস্থা যখন মানুষ এমনভাবে ‘ইবাদাত করবে যে, তার মনে এই উপলব্ধি জেগে উঠবে যে, আল্লাহ তাকে সবসময় দেখছেন। কোনো ব্যক্তির মধ্যে যখন তাকওয়ার গুণ অর্জিত হবে, তখন সে আল্লাহর সাহায্য দেখতে পাবে। কোনো জাতির মধ্যে যখন এই গুণ অর্জিত হবে কেবল তখনই তাদের কাছে আল্লাহর সাহায্য আসবে। আসবে প্রতিশ্রুত বিজয়।

আজকে আমরা শর্টকাট খুঁজি। নিজেকে না-বদলেই চাই ইসলামের পুনর্জাগরণ ঘটে যাক। ভেতরটা না বদলে আমরা খোসাটা বদলাতে চাই। কিন্তু এটা যে ইসলামি পন্থা নয়। সত্যিকার পুনর্জাগরণ ঘটবে আমাদের থেকেই। আর তা শুরু করতে হবে বিশুদ্ধ জ্ঞান অর্জন করে। এরপর সেই জ্ঞান অনুযায়ী চর্চা করতে হবে, গড়ে উঠতে হবে আত্মিকভাবে এবং এই গুণ অর্জন করার জন্য সাহায্য করতে হবে অন্যদেরকেও। আর এভাবেই একসময় আমরা দেখব, আমাদের চারপাশে জেগে উঠছে ইসলাম।

মূল লেখক: Ismail Kamdar, Head Tututorial Assistant, Islamic Online University

ইংরেজিতে মূল লেখাটি পড়ুন এখানে: http://abumuawiyah.com/verse-of-the-day-18-2452-keys-for-victory/  

বাংলা অনুবাদটি প্রথম প্রকাশিত হয় এখানে: https://www.facebook.com/masud.shorif/posts/10152924007706332 

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s