মিলাদুন্নাবি নিয়ে বিতর্কের মৌসুম (অনুবাদ)

শাইখ ড. ইয়াসির কাযির একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস আপডেট থেকে অনুদিত।

Prophet-Muhammad

দুঃখজনক ব্যাপার হলো উভয় পাশেই আছেন অতিগোঁড়া ও অতিউৎসাহী এমনকিছু লোকজন যাদের রয়েছে একে অন্যের প্রতি ঘৃণা আর অবজ্ঞা।

ব্যক্তিগতভাবে আমি ১২ই রাবিউল-আওয়ালে বিশেষ কিছু করি না। কারণ, আমার বিশ্বাস, নাবির (তাঁর উপর বর্ষিত হোক আল্লাহর আশীর্বাদ ও শান্তি) জন্মের তারিখ নিশ্চিতভাবে আমাদের কাছে অজানা। তবে তাই বলে যারা ইসলামের সীমার মধ্যে থেকে নাবির প্রশংসা করেন তাদেরকে আমি অবজ্ঞা বা নীচু চোখে দেখি না।

আসল ঘটনা হচ্ছে বিগত সাত শতাব্দি জুড়ে আমাদের শ্রদ্ধেয় বিদ্বানগণ এই দিন উদযাপনকে একদিকে যেমন অনুৎসাহিত করেছেন, তেমনি অন্যদিকে শর্তসাপেক্ষে অনেকে এই দিন উদযাপনকে উৎসাহিত করেছেন। সিরিয়াস কোনো গবেষণাকারী এই সত্যকে অস্বীকার করতে পারবেন না। কাজেই আপনি যদি কোনো একদল বিদ্বানদের মত অনুসরণ করেন, তাহলে অন্তত এটুকু উপলব্ধি করুন যে, আরেকদল শ্রদ্ধেয় আইনজ্ঞগণ অন্য মত বেছে নিয়েছেন। সুতরাং কোনো একটি মত অনুসরণ করলেও ভিন্ন মতকে সম্মান করুন।

বিশেষ করে আজকের সময়ে যখন আমাদের মুসলিম জাতি চরম বিপর্যয় ও বিশৃঙ্খলার মুখোমুখি, তখন উভয়পক্ষই কি এ ব্যাপারে একমত হতে পারে যে, তাদের নিজ নিজ অবস্থানের পেছনের প্রেরণা অভিন্ন?!

অন্য কথায়, যারা মিলাদুন্নাবি উদযাপন করেন, তারা আমাদের নাবির (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) প্রতি আন্তরিক ভালোবাসার কারণেই করেন। আর অন্যদিকে যারা এই উদযাপনকে নিন্দনীয় উদ্ভাবন (বিদ’আত) হিসেবে বিবেচনা করেন, তারাও নাবির (সা) প্রতি ভালোবাসা থেকে তাঁকে পরিপূর্ণভাবে অনুসরণের জন্যই তা করেন।

মতপার্থক্যকে বেশি আমল না-দিয়ে আমরা কেন উভয়পক্ষের নিজ নিজ অবস্থানের পক্ষে তাদের মূলপ্রেরণাকে আমলে নিই না? উভয়পক্ষ কেন এ ব্যাপারে একমত হতে পারি না যে, মিলাদুন্নাবি নিয়ে সঠিক মত যা-ই হোক না কেন, নাবি (সা) কখনোই এটা চাইতেন না যে, তাঁর উম্মাহ একে অপরকে বর্জন করবে, তকমা দেবে, ঘৃণা করবে? বিশেষকরে আজকের এই মহাবিপর্যয়ের সময়ে যখন দুনিয়াজুড়ে শরণার্থী হিসেবে লাখ লাখ মুসলিম দ্বারে দ্বারে ঘুরছে, অত্যাচারিত হচ্ছে কিংবা ইসলামভীতির মুখোমুখি হচ্ছে, তখন উপরের উপলব্ধিটা খুব বেশি জরুরি।

আল্লাহ আমাদের সবার অন্তরকে তাঁর উপাসনা (দাসত্ব) ও রাসূলুল্লাহর (সা) প্রতি ভালোবাসা উপর ঐক্যবধ্য করুক। কারণ, দিনশেষে এদুটোই বিবেচ্য।

সূত্র: https://www.facebook.com/masud.shorif/posts/10153199097491332

সহায়ক পাঠ:

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s