ছোট ছোট জীবন-পরিবর্তনকারী অভ্যাস গড়ে তোলার গুরুত্ব

Footsteps on the beach

বিল গেটসের একটা উক্তি পড়লাম: “অধিকাংশ লোক এক বছরে তারা কী করতে পারবে সে ব্যাপারে অতিমূল্যায়ন করে, কিন্তু অবমূল্যায়ন করে দশ বছরে কী করতে পারবে।”

অর্থাৎ বেশিরভাগ মানুষ মনে করে, অল্প সময়ে অনেক কিছু অর্জন করে ফেলবে। কিন্তু বাস্তবে তারা হয়তো সেটা অর্জন করতে পারে না। দুএকবার হোঁচট খেলেই হাল ছেড়ে দেয়। অন্যদিকে মানুষ যদি ভাবত ছোট ছোট করে হলেও দীর্ঘ সময় পরে সেটা কী বিশাল ফল বয়ে আনবে, তাহলে হয়তো হাল ছেড়ে দিতে হতো না। কাজটায় লেগে থাকত। কাঙ্ক্ষিত ফল পেত।

আল্লাহর রাসূল (তাঁর উপর বর্ষিত হোক আল্লাহর শান্তি ও অনুগ্রহ), তিনি বলেছেন, “যে-পরিমাণ করার সামর্থ্য আছে সে-পরিমাণ ভালো কাজের দায়িত্ব নাও। কারণ, উত্তম কাজ সেগুলোই যেগুলো অল্প পরিমাণে হলেও নিয়মিত করা হয়।” (সুনান ইব্‌ন মাজাহ, হাদীস নং-৪২৪০, আল-আলবানীর মতে স়াহ়ীহ়)

‘ইবাদাত তো বটেই দৈনন্দিন অনেক কাজের ক্ষেত্রেই এই সূত্র খাটে। বিশেষ করে যেসব কাজ অনেক সময় ধরে করতে হয়, বা অনেক দিন ধরে করতে হয়, সেসব ক্ষেত্রে এটা খুব জরুরি: ধারাবাহিকতা।

স়ালাতের ক্ষেত্রে অনেকে ফার্দ (ফরজ), সুন্নাতের কথা চিন্তা করতে যেয়ে কোনোটাই আর আদায় করতে পারেন না। ভাবেন: এত স়ালাত কীভাবে পড়ব। যার ফলে কখনো পড়েন, কখনো পড়েন না। কিন্তু এভাবে না করে, কেউ যদি কেবল ফার্দ়গুলো পালনের অভ্যেস ধারাবাহিকভাবে গড়ে তোলেন, তাহলে একসময় তিনি নিজ তাগিদেই সুন্নাহগুলো আদায় করতে পারবেন।

২০০ পৃষ্ঠার একটা বই আপনি পড়তে চান। কিংবা ক্যারিয়ারে উন্নতির জন্য অনলাইনে কোনো কোর্স করতে চান। কিন্তু কোর্সের আউটলাইন বেশ দীর্ঘ। অনেক সময়ের ব্যাপার। এসব ক্ষেত্রে যা করতে পারেন, তা হচ্ছে প্রতিদিন ত্রিশ মিনিট সময় দিন। মাত্র ত্রিশ মিনিটে দশ পাতা করে প্রতিদিন পড়লে দু শ পৃষ্ঠার বই শেষ করতে সময় লাগবে বিশ দিন। মাত্র বিশ দিন! লাইব্রেরিতে ফেলে রেখে ধুলো লাগানোর চেয়ে বিশ দিনে শেষ করা কি ভালো না? লম্বা একটা কোর্স ‘পরে’ করব, ‘পরে’ করব এই আশায় ফেলে না রেখে, প্রতিদিন একটু একটু করে এগোলে কি ভালো হবে না?

ছোট ছোট জীবন-পরিবর্তনকারী অভ্যাস গড়ে তোলার জন্য, এ ধরনের ধারাবাহিকতা বেশ কাজে দেয়। বাজে অভ্যাস ছাড়া থেকে শুরু করে যেকোনো ভালো অভ্যাস গঠনে এই ধারাবাহিকতা আপনাকে এমন একটা পর্যায়ে নিয়ে যাবে, যেখানে সেই অভ্যেসটা আপনার স্বভাবেরই একটা অংশ হয়ে যাবে। আপনি তখন কাজের টার্গেট নিয়ে অযথা চিন্তিত না-হয়ে, প্রসেস বা প্রতিদিন অল্প অল্প করার প্রতি মনোযোগী হবেন। আর এভাবে প্রথম ভাবনায় যে কাজটি অনেক কঠিন মনে হয়েছিল, বা আমরা যেটাকে অতিমূল্যায়ন করেছিলাম, আল্লাহ চায় তো সেটা ধীরে ধীরে অর্জিত হয়ে যাবে।

পুনশ্চ: সুন্নাহ স়ালাতকে আমি কোনোভাবেই এখানে ছোট করে দেখছি না। এর গুরুত্বকে অস্বীকার করছি না। স়ালাতের কথাগুলো তাদের জন্য, যারা ইচ্ছা থাকার পরও স়ালাতে নিয়মিত হতে পারছেন না। গড়িমসি করছেন। কিংবা প্রতিদিন এত এত রাকা‘আত পড়তে হবে ভাবলেই যাদেরকে আলসেমি পেয়ে বসে।

লেখাটি প্রথম প্রকাশিত হয় লেখকের ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইলে

আরও পড়ুন:

Photo credit: Adrianna Calvo

Advertisements

5 thoughts on “ছোট ছোট জীবন-পরিবর্তনকারী অভ্যাস গড়ে তোলার গুরুত্ব

  1. পিংব্যাকঃ সূরা ইউসুফ থেকে পাওয়া ১২টি জীবনঘনিষ্ঠ শিক্ষা (১): লক্ষ্য নির্ধারণ করুন, লেগে থাকুন | আমার স্পন্দন

  2. পিংব্যাকঃ কাজের সময়ে মনোযোগ ধরে রাখার চারটি কার্যকরী কৌশল | আমার স্পন্দন

  3. পিংব্যাকঃ সূরা ইউসুফ থেকে পাওয়া ১২টি জীবনঘনিষ্ঠ শিক্ষা (২): মাথা ঠান্ডা রেখে সামনে এগিয়ে যান | আমার স্পন্দন

  4. পিংব্যাকঃ প্রতিদিন ২৫ মিনিট করে হলেও বই পড়ুন | আমার স্পন্দন

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s