সন্ত্রাসের সাথে জিহাদের সম্পর্ক আর বিয়ের সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক একই (অনুবাদ)

Abu Aaliyah – Surkheel Sharif-এর “Terrorism is to Jihad as Adultery is to Marriage” লেখাটি থেকে অনুদিত। অনুবাদের সময়ে সামান্য পরিমার্জন করা হয়েছে আমাদের পার্সপেক্টিভের সাথে মিল রাখার জন্য। অনুবাদের অনুমতি নেয়া হয়েছে।

Peshawar school attack

জিহাদ, সন্ত্রাসবাদ আর মানবজীবনের মর্যাদা সম্বন্ধে ইসলামের পজিশন কী তা আজকের এই লেখার বিষয়। এই লেখার ভিত্তি কুরআন, সুন্নাহ, স্কলারদের ঐক্যমত (ইজমা) এবং মূলধারার স্কলারদের চিন্তাভাবনা। সরকার বা নীতিনির্ধারকদের খুশি করার জন্য এটা লেখা হচ্ছে না। ইসলামকে যুগের সাথে তাল মিলায়ে ‘আধুনিক’ করার ইচ্ছা থেকেও লেখা হচ্ছে না। যা লেখা হচ্ছে তা হলো এই বিষয়ে ইসলামের মূলনীতির সারাংশ।  বিস্তারিত পড়ুন

Advertisements

দাঁড়ি, হিজাব ও বডি ল্যাঙ্গুয়েজ এবং নারী-পুরুষ পারস্পরিক আচরণবিধি (অনুবাদ)

Abu Aaliyah – Surkheel Sharif-এর “Beards, Hijabs & Body Language: Gender Relations” লেখাটি থেকে অনুদিত। অনুবাদের সময়ে সামান্য পরিমার্জন করা হয়েছে আমাদের পার্সপেক্টিভের সাথে মিল রাখার জন্য। অনুবাদের অনুমতি নেয়া হয়েছে।

Man and woman

নারী-পুরুষের সম্পর্ক নিয়ে ইসলাম কী বলে? এরা একে অপরের সাথে কীভাবে সম্মানজনক সম্পর্ক বজায় রেখে ওঠাবসা ও চলাফেরা করতে পারে? এ বিষয়ে ইসলামী শরীয়ার জ্ঞান ও বিধিনিষেধ কীভাবে প্রতিদিনের জীবনে কাজে লাগানো যায়? এই লেখায় আমরা এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। প্রথমেই আমি এই বিষয়ে শরীয়ার মূলনীতিগুলো তুলে ধরব। তারপর আমরা নারী-পুরুষ সম্পর্কের ব্যবহারিক ও প্রাসঙ্গিক দিক নিয়ে আলাপ করব। বিস্তারিত পড়ুন

অপরাধের কারণে অপরাধীর গীবত করা বৈধ হয়ে যায় না

Morning chit chat

Photo credit: flickr[dot]com/photos/kmanvendra/14050880094

গীবত বলা হয় কারো অগোচরে তার এমন দোষ সম্পর্কে আলোচনা করা, যেটা তার মধ্যে বিদ্যমান এবং সে শুনলে কষ্ট পাবে। কোরআন ও হাদিসে এই গোনাহটি সম্পর্কে বহুবার সতর্ক করা হয়েছে। এটা এমন একটি গোনাহ, যার গীবত করা হয়েছে, সে মাফ না করলে মাফ হবে না।

তবে, বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে ফুকাহায়ে কেরাম গীবত করাকে বৈধ বলেছেন। ইমাম নববী (রহ:) বলেন, ”সৎ ও শরীয়ত সম্মত উদ্দেশ্য সাধন যদি গীবত ছাড়া সম্ভব না হয়, তাহলে এক্ষেত্রে গীবত জায়েয।” তাঁর মতে ছয়টি ক্ষেত্রে গীবত করা বৈধ। এগুলো হলো: বিস্তারিত পড়ুন

ফিতনার সময়ে করণীয়

1_1

29_11

29_2

29_3

আলিফ লাম মীম। মানুষ কি মনে করে, ‘আমরা ঈমান এনেছি’ বললেই ওদের ফিতনা (পরীক্ষা)  ছাড়াই ছেড়ে দেওয়া হবে? ওদের পূর্ববর্তীদেরকেও পরীক্ষা করা হয়েছিলো। অবশ্যই আল্লাহ্‌ স্পষ্ট করে দেবেন কারা সত্যবাদী ও কারা মিথ্যাবাদী। – (সূরা আনকাবুত ২৯:১-৩)

নিচের ঘটনাগুলোর কথা ভেবে দেখুন:

  • হঠাৎ করেই বিশাল এক বিল্ডিং ধ্বসে পড়েছে আপনার শহরে। ধ্বংসস্তুপের নিচে চাপা পড়া মুখগুলোর ছবি দেখে আপনি ঘুমাতে পারছেন না। মনের ভিতরের ছটফটানিটা যেন কিছুতেই থামছে না। নিজেকে বারবার প্রশ্ন করছেন – এদের জন্য আমি কী করতে পারি?
  • দেশজুড়ে ‘অমুক’ ইস্যু নিয়ে মাঠ গরম হয়ে গেছে। আপনার বন্ধুরা, পাড়ার বড় ভাইয়েরা দলে দলে যোগ দিচ্ছেন ‘তমুক চত্বরে’। আপনিও ভাবছেন – আমিও ওদের সাথে যাবো নাকি? আবার ভাবছেন – এদের সাথে গেলে তো আমার অন্য সার্কেলের বন্ধুরা আমাকে খারাপ বলবে। কি যে করি, কি যে করি, ফেইসবুকে একটা রক্তগরম স্ট্যাটাস দিয়ে দিবো নাকি? কিছুতেই আপনি বুঝে উঠতে পারছেন না কি করবেন!
  • শুরু হয়েছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা। গত কয়েক বছরে ক্রিকেটে  আপনার দেশ ভালো খেলায় এটাই এখন জাতীয় সিম্বল। আড্ডায়, টিভিতে, সংবাদপত্রে, ফেইসবুকে – যেখানেই যান শুধু ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা। ক্রিকেটের নেশায় বুঁদ হয়ে আছে পুরো জাতি। আর এর মধ্যে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলাটা পড়েছে কিনা ঠিক জুম’আর সময়! খেলা দেখলে জুম’আ মিস, জুম’আ পড়তে গেলে খেলা দেখা মিস। বড় মুসিবতে পড়া গেলো! কি যে করি!
  • এসেছে রামাদান মাস। আপনি ভাবলেন রামাদান উপলক্ষে ফেসবুকের ইসলামী লেখাগুলি একটু পড়ে দেখি। পড়তে যেয়ে দেখলেন – আপনার “ইসলামী মাইন্ডেড” বন্ধুরা যতটা রামাদানের করনীয়-বর্জনীয় আর ফজীলত সম্পর্কে লিখছে, তার চেয়ে ঢের বেশী মারামারি করছে তারাবীর নামাজ ৮ রাকআত না ২০ রাকআত নিয়ে। এই পক্ষ ইট মারে তো অন্য পক্ষ হাতবোমা মারে। এই লেখাগুলি পড়তে যা মজা! কিসের কি রামাদানের ফজিলত, আপনি মজে গেলেন মাজহাবী বিতর্কে।

উপরে যে ঘটনাগুলো বলা হলো তার সবগুলিতে একটা ব্যাপার কমন – এগুলো সবই “ফিতনা”-র উদাহরণ। ফিতনা (trials and tribulations) মানব ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বিশেষত: আমরা এখন যে সময়ে বাস করছি তাতে পারিবারিক, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় ফিতনা প্রায়শ:ই চরম আকার ধারণ করে। দেশে বলুন, দেশের বাইরে বলুন সর্বত্র মানুষের মধ্যে ব্যাপক মতপার্থক্য যা হঠাৎ করেই রূপ নেয় ঝগড়ায়, ঘৃণায়, খুনাখুনিতে।  ফিতনা যখন চরম আকার ধারণ করে তখন ভালো-মন্দের পার্থক্য করা কঠিন হয়ে পড়ে, আর এই সময়ে অনেকেই কনফিউজড হয়ে পড়ে যে, আমার কী করণীয়? ফিতনার সময়ে একজন প্রকৃত মুসলিমের দায়িত্ব কী  বিস্তারিত পড়ুন

মিলাদুন্নাবি নিয়ে বিতর্কের মৌসুম (অনুবাদ)

শাইখ ড. ইয়াসির কাযির একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস আপডেট থেকে অনুদিত।

Prophet-Muhammad

দুঃখজনক ব্যাপার হলো উভয় পাশেই আছেন অতিগোঁড়া ও অতিউৎসাহী এমনকিছু লোকজন যাদের রয়েছে একে অন্যের প্রতি ঘৃণা আর অবজ্ঞা।

ব্যক্তিগতভাবে আমি ১২ই রাবিউল-আওয়ালে বিশেষ কিছু করি না। কারণ, আমার বিশ্বাস, নাবির (তাঁর উপর বর্ষিত হোক আল্লাহর আশীর্বাদ ও শান্তি) জন্মের তারিখ নিশ্চিতভাবে আমাদের কাছে অজানা। তবে তাই বলে যারা ইসলামের সীমার মধ্যে থেকে নাবির প্রশংসা করেন তাদেরকে আমি অবজ্ঞা বা নীচু চোখে দেখি না।

আসল ঘটনা হচ্ছে বিগত সাত শতাব্দি জুড়ে আমাদের শ্রদ্ধেয় বিদ্বানগণ এই দিন উদযাপনকে বিস্তারিত পড়ুন